মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৮:২৩ পূর্বাহ্ন

News Hewdline :
বহিষ্কার যেন স্থায়ী হয়: আবরারের বাবা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ৭৩তম জন্মদিন আজ রাষ্ট্রের স্বার্থ রক্ষার্থে সরকার যখন যে সিদ্ধান্ত নেবে তা বাস্তবায়ন করবে র‌্যাব “অদম্য বাংলাদেশ” সংগঠনের উদ্যোগে শেখ হাসিনার ৭৩তম শুভ জন্মদিন উদযাপন হাশেমিয়া কামিল মাদ্রাসা ছাত্রলীগের উদ্যোগে প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত মাহাত্মা গান্ধী ছিলেন আশার বাতিঘর,অন্ধকারে আলো এবং হতাশায় ত্রাণকর্তা : প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সেবা ফাউন্ডেশন ঈদগাঁহ ইউনিয়ন শাখার অনুমোদন কক্সবাজার জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির জরুরি সভা অনুষ্ঠিত কক্সবাজার জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ এর প্রস্তুতি সভা সম্পন্ন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ক’ ইউনিটের ভর্তিযুদ্ধ শুরু ,প্রতি আসনের জন্য লড়ছেন ৪৯ জন
এনজিওর চাকরির নামে অপরাধ জগতে চকরিয়ার সায়েম

এনজিওর চাকরির নামে অপরাধ জগতে চকরিয়ার সায়েম

নিজস্ব প্রতিবেদক:

চকরিয়া উপজেলার কাকারার সায়েম নিজের পরিচয় গোপন করে কোডেক নামক একটি এনজিও তে অন্য জনের সার্টিফিকেট ব্যবহার করে চাকরি করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। তার বাড়ী চকরিয়া উপজেলার কাকারা হলেও নিজের পরিচয় গোপন রেখে সে চাকরিতে হেলাল উদ্দিন সায়েম পিতা -ছিদ্দিক আহমদ সিকদার সাং-মরিচ্যাপালং এর ঠিকানা ব্যবহার করে । কর্মস্থলে নিজের আসল পরিচয় গোপন থাকায় সায়েম বিভিন্ন অপরাধ দেদারসে চালিয়ে যাচ্ছে। সায়েমের বিরুদ্ধে ইয়াবা পাচার ও সেবন এবং ক্যাম্প থেকে নারীদের কৌশলে বের করে আমোদ ফুর্তিতে লিপ্ত থাকার অভিযোগ রয়েছে ।কোডেক এনজিও সংস্থার এক সিনিয়র কর্মকর্তা তার এই অপকর্মে সহযোগিতা করছে বলে জানা গেছে ।

এই কর্ম-কর্তা বিনিময়ে সায়েমের কাছ থেকে অনৈতিক সুবিধা ভোগ করে।কাকারার সায়েম কোডেক এন.জিওতে যে সার্টিফিকেটট এবং ঠিকানা ব্যবহার করেছে তা মুলত মরিচ্যা পালং এলাকার ছিদ্দিক আহমদ সিকদারের পুত্র হেলাল উদ্দিনের।কাকারার সায়েম মাত্রাতিরিক্ত অপকর্মের অভিযোগ যখন কোডেকে ব্যবহৃত মরিচ্যা পালং-এর হেলাল উদ্দিন সায়েমের সার্টিফিকেট ও ঠিকানায় অর্থাৎ হেলাল উদ্দিনের বাড়িতে নানান অভিযোগ গেলে হেলাল উদ্দিনের ঠনক নড়ে।খোজ নিয়ে হেলাল উদ্দিন জানতে পারে কাকারার সায়েম নামের একটি ছেলে তার সার্টিফিকেট এবং ঠিকানা ব্যবহার করে কোডেক-এ চাকুরী করার পাশাপাশি নানান অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে।এই ব্যাপারে প্রতিকার পেতে হেলাল উদ্দিন বাদি হয়ে উখিয়া থানাতে গত ২৭.০৮.২০১৯ ইং তারিখ একটি সাধারণ ডায়েরি করেন,যার নাম্বার-১০৩৬।সাধারণ ডায়েরিতে হেলাল উদ্দিন উল্লেখ করেন,চকরিয়া উপজেলার কাকারা নামক এলাকার ‘সায়েম’ নামের একটি ছেলে তার সার্টিফিকিট ও ঠিকানা ব্যবহার করে রোহিংগা ক্যাম্পে চাকুরী ও নানান অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে।যার মিথ্যা অপবাদ হেলাল উদ্দিনকে পোহাতে হচ্ছে।হেলাল উদ্দিন সাধারণ ডায়েরিতে উল্লেখ করেন,নিজের চাকরিস্থল পাইওনিয়ার হ্যাচারির অফিস কাস্টোডি থেকে তার এস এস সি/ ১৯৯৫ শিক্ষা বোর্ড কুমিল্লা যাহার রোল নম্বর ১৪৫৮০৩,এইচ এস সি/১৯৯৭ শিক্ষা বোর্ড চট্টগ্রাম যাহারা রোল নম্বর ৫১১৯১৪ ও বি.কম/২০০১ সনের জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে যাহার রোল নম্বর ৪১৩১৬৩ এর মূল সার্টিফিকেট কে বা কাহারা চুরি করে নিয়ে যায় |

সার্টিফিকেট চুরি করে কতিপয় লোক কোডেক এন.জিও সংস্থায় চাকুরী ও অপকর্ম চালাচ্ছে। কাকার সায়েমের ব্যহৃত মোবাইল নাম্বার-০১৮৬৮২৩১৩০৮-এ যোগাযোগ করলে সায়েম পুরো ঘটনা অস্বীকার করে এবং সে একটি ওষুধ কোম্পানিতে চাকুরী করে বলে জানান।অথচ,খোজ নিয়ে জানা যায়,সায়েম দীর্ঘদিন যাবত কোডেকের একটি শিক্ষা প্রকল্পে চাকুরী ও অপকর্ম চালাচ্ছে।সায়েমের বিরুদ্ধে চাকুরীর আড়ালে ইয়াবা,নারী পাচারসহ নানান অভিযোগ রয়েছে।কোডেকের সিনিয়র কর্মকর্তা অসীম বড়ুয়ার সাথে যোগাযোগ করলে জানান,এইরকম অহরকম ঘটনা ঘটেই যাচ্ছে।তাদের কিছুই করার নাই। সচেতন মহল মনে করছেন পরিচয় গোপন করে এনজিওর চাকরিকে ব্যবহার করে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ভিতরে বাহিরে অপরাধীরা সক্রিয় রয়েছে। এই সব অপরাধ দমনে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনী এবং গোয়েন্দা সংস্থার কঠোর নজরধারী প্রয়োজন।   

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *